Covid মুক্তি পেতে ধর্মান্ধদের গোবর মাখা, উটের মূত্রের বৈজ্ঞানিক যুক্তি নেই; বরং ছড়ায় অন্য রোগ-দাবি ডাক্তারদের

বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে কোভিডের দ্বিতীয় ধাক্কা মোকাবিলায় ভারতের অবস্থা হিমশিম। কোভিডের ধাক্কা এতটাই যে অক্সিজেন ঘাটতি আর হাসপাতালের বেড সল্পতায় ভুগছে গোটা দেশ। নড়ে গেছে চিকিৎসা পরিকাঠামো। এমন অবস্থায় টিকা আবিস্কারের সত্ত্বেও এত বিপুল পরিমাণ টিকাকরণ এখনও সম্পূর্ণ হয়নি ১৩৯ কোটির দেশের।

এমন অবস্থায় দেশের প্রথম সারির কোভিড যোদ্ধারা হিমশিম খাচ্ছেন দেশের মানুষের জীবন বাঁচাতে। এর মধ্যেই কিছু ধমার্নুরাগীদের দেখা যাচ্ছে করোনা রোগের দাওয়া হিসেবে গোরুর গোবর বা উটের মূত্রের কথা শুনতে। উত্তর প্রদেশের কিছু মানুষ যেখানে উৎসব করে গায়ে গোবর মাখে যাদের দাবী গোবরের ইমিউনিটি বর্ধক আর এতে করোনা নির্মূল সম্ভব।

তবে তাদের এই দাবী উড়িয়ে দিচ্ছেন দেশের নামজাদা ডাক্তারেরা; ডাক্তারদের মতামত গোরুর গোবর বা উটের মূত্র করোনা নিরাময় তো করেই না উল্টে এর থেকে অন্যান্য অনুজীব ঘটিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। তাদের মতে এর সাথে কোনো বৈজ্ঞানিক যুক্তি নেই। গোবর বা উটের মূত্রে কোনো রোগ নিরাময় সম্ভব নয় এবং ভ্রান্ত ধারণা।

গুজরাতের কিছু মানুষ বিশ্বাসী যারা সপ্তাহে একবার করে গোরুর খামারে গায়ে গোবর মাখতে যাচ্ছেন। হিন্দু ধর্ম মতে গোরু পবিত্র জীব কারণ তার থেকে আমরা দুগ্ধ পেয়ে থাকি তাই তাকে মাতৃজ্ঞানে পূজো করা হয়। ধারণা করা হয় গোরু বাড়িতে থাকলে তা মঙ্গলজনক আর এর গোবরে অ্যান্টিবায়োটিক বৈশিষ্ট্য আছে।

তারা সাধারণত গোরুর গোবর মেখে থাকেন কয়েক ঘন্টা তারপর গোরুর দুধ অথবা ঘোল দিয়ে স্নান করেন, সাথে যোগব্যায়াম; এতে করে তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে-দাবি তাদের। তবে যোগ ব্যায়ামের উপকারিতা থাকলেও গোবরে কোনো প্রকার কোভিড মোকাবিলা হয় এমন দাবী উড়িয়ে দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।

তথ্যসূত্রঃ র‍য়টার

আরও পড়ুনঃ ধর্ম নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য হিন্দু অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী ও তার মা’কে

Leave a Comment